শিবচর ট্র্যাজেডি: ঘাটের ইজারাদারসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা

0
21

মাদারীপুর জেলার শিবচরের কাঁঠালবাড়ি এলাকায় পদ্মা নদীতে বালু বোঝাই বাল্কহেডের সাথে স্পিডবোটের সংঘর্ষে ২৬ জনের নিহতের ঘটনায় শিমুলিয়া ঘাটের ইজারাদারসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা  করেছে পুলিশ।

সোমবার (৩ মে) দিবাগতে রাতে মাদারিপুরের চরজানাজাত নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) লোকমান হোসেন বাদী হয়ে শিবচর থানায় এই মামলা করেন। মামলায় শিমুলিয়া ঘাটের ইজারাদার, স্পিডবোটের মালিক ও চালককে আসামী করা হয়েছে। শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  (ওসি)মিরাজ হোসেন  রিপোর্টকে মামলার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

শিবচর থানার ওসি মিরাজ হোসেন দ্য রিপোর্টকে বলেন, ‘মামলায় স্পিডবোটের দু্ই মালিক কান্দু মোল্লা ও জহিরুল ইসলাম, চালক শাহ আলম ও শিমুলিয়া ঘাটের ইজারাদার শাহ আলম আকনকে আসামী করা হয়েছে। এই মামলার তদন্তভার নৌ-পুলিশের উপরেই থাকবে। আর গুরুতর আহত স্পিড বোট চালক পুলিশের নজরদারিতে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।’

সোমবার (৩ মে) মাদারীপুর জেলার শিবচরের বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটের কাঁঠালবাড়ি এলাকায় পদ্মা নদীতে বালু বোঝাই বাল্কহেডের সাথে ওই স্পিডবোটের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ওইদিন সকাল সাড়ে ৬টার দিকে এ দুর্ঘটনায় এ পর্যন্ত ২৬ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আহত দুইজনকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতদের মধ্যে ৮ জনের পরিচায় গেছে।

পরিচয় পাওয়া ৮জন হলেন-ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলার মাইগ্রো এলাকার আরজু সরদার (৪০) ও তাঁর দেড় বছর বয়সী ছেলে ইয়ামিন, পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলার পসারিয়াবুনিয়া এলাকার জনি অধিকারী (২৬), তিতাস উপজেলার ইসুবপুর এলাকার জিয়াউর রহমান (২৮), মুন্সিগঞ্জের সাতপাড় এলাকার সাগর শেখ (৩৭). কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার মাইখারকান্দি এলাকার কাওসার হোসেন (৪০) ও রুহুল আমিন (৩৫) ও মাদারীপুরের রাজৈর শঙ্কারদি এলাকার তাহের মীর (৩০)।

শিবচরে মর্মান্তিক এই নৌদুর্ঘটনায় সোমবার(৩ মে) ৬ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন। স্থানীয় সরকার অধিদফতরের উপপরিচালক আজহারুল ইসলামকে প্রধান করে এ কমিটিকে আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া নিহতের প্রত্যেকের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন জেলা প্রশাসক ডা. রহিমা খাতুন। আহতদের চিকিৎসার ব্যয় বহন করা হবে বলেও তিনি জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here