শাহজাদপুরে কলেজছাত্র আশরাফুল হত্যা নেশা খাইয়ে শ্বাসরোধে খুন করে প্রেমিকার ভাই।

0
178
জহুরুল ইসলাম, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি ঃ  সিরাজগঞ্জের শাহাজাদপুরে কলেজ ছাত্র আশরাফুল ইসলাম (১৮) হত্যার ২৪ ঘন্টার মধ্যে ঘটনার রহস্য উন্মোচন করেছে শাহজাদপুর থানা পুলিশ। হত্যার সাথে জড়িত ইউসুফ আলী (১৯) নামের একজনকে আটক  করা হয়।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, শাহজাদপুর উপজেলার নরিনা ইউনিয়নের নরিনা পূর্ব পাড়ার (হানিফ নগর) মোঃ আজাদ আলীর ছেলে আশরাফুল ইসলামের (১৮) লাশ শনিবার সকালে বাড়ি থেকে ৫০০ মিটার দূরে মাষকলাইয়ের ক্ষেতে পাওয়া যায়। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।
শাহজাদপুর থানা পুলিশ নিহতের স্বজন ও প্রতিবেশীদের জিজ্ঞাসাবাদ ও অনুসন্ধান চালিয়ে প্রতিবেশী মৃত আবু তালেব মোল্লার পুত্র মোঃ ইউসুফ আলীকে আটক করে। পরে জিজ্ঞাসাবাদে ইউসুফ হত্যাকান্ডের কথা স্বীকার করে। ইউসুফ পুলিশকে জানায় তার ছোটবোনের সাথে আশরাফুল প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে যা সে মেনে নিতে পারেনি। অপরদিকে আশরাফুল ও তার পিতার সাথে কিছুদিন আগে ইউসুফ ও তার মায়ের মাটি কাটা নিয়ে বিবাদ হয়। এ সমস্ত ক্ষোভ পুষে রেখে আশরাফুলকে হত্যার পরিকল্পনা করতে থাকে ইউসুফ।
এই পরিকল্পনা অনুযায়ীই ঘটনার দিন সন্ধায় আশরাফুল ও ইউসুফ ড্যান্ডি (নেশার উপকরণ) নিয়ে মাশকালাইয়ের ক্ষেতে যায়। আশরাফুল একাই নেশা করে, নেশা করে ইউসুফের বোনকে নিয়ে আজেবাজে কথা বলতে থাকে। তখন ইউসুফ পকেটে থাকা জিআই তার বের করে পেছন থেকে আশরাফুলের গলায় পেচিয়ে ধরে। কিছুক্ষণের মধ্যেই আশরাফুলের দেহ নিস্তেজ হয়ে গেলে ইউসুফ ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।
হত্যাকান্ডের তদন্তকারী কর্মকর্তা মোঃ সহিদুল ইসলাম (ওসি তদন্ত) জানান, কেউ যেনো সন্দেহ করতে না পারে তাই হত্যার পরদিন সকালে ইউসুফ স্বাভাবিকভাবেই তার কাজে যায়। মোঃ আসলাম হোসেন (ওসি অপারেশন এন্ড কমিউনিটি পুলিশিং) ও এসআই রেজাউল করিম রেজাসহ আমাদের তথ্যানুসন্ধানে তাকে সন্দেহ হলে আমরা তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসি। জিজ্ঞাসাবাদে সে সবকিছু স্বীকার করে নেয়।
শাহজাদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আতাউর রহমান জানান, গ্রেফতারকৃত আসামি ইউসুফকে শাহজাদপুর কোর্টে প্রেরণ করা হলে সে হত্যার কথা স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দিয়েছে।#

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here