র‌্যাবের ৬ ঘন্টার অভিযানে শাহজাদপুরে ৪ জেএমবি সদস্য আটক

0
12

জহুরুল ইসলাম, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার পৌর সদরের শেরখালীতে ফজলুল হক মাস্টারের বাড়িতে ভোর ৫টা থেকে ১১টা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে জেএমবির পাবনা-সিরাজগঞ্জের আঞ্চলিক আমির কিরণ, আমিনুল ইসলাম শান্ত, কাঞ্চন সহ ৪ জঙ্গিকে আটক করেছে র‌্যাব।

শাহজাদপুরে জঙ্গিদের অবস্থান জানতে পেরে র‌্যাবের গোয়েন্দা বিভাগ ভোর রাতে অভিযান শুরু করলে র‌্যাবের অবস্থান টের পেয়ে জঙ্গিরা র‌্যাবকে উদ্দেশ্য করে গুলি বর্ষণ করে। হতাহত আটকাতে র‌্যাব কৌশল পরিবর্তন করে প্রথমে বাড়িটিকে ঘিরে রাখে। পরবর্তীতে  র‌্যাবের অতিরিক্ত পরিচালক (অপারেশন) কর্ণেল তোফায়েল মোস্তফা সারোয়ার নেতৃত্বে নতুনভাবে অপারেশন পরিচালনা করেন। এ সময় জঙ্গিদের আত্মসমর্পণের আহ্বান জানান। দীর্ঘ প্রচেষ্টার পর জঙ্গিরা আত্মসমর্পণের সিদ্ধান্ত নেয়। বেলা সাড়ে এগারোটার দিকে র‌্যাব তাদের গ্রেফতার করেন।
সফল অভিযান পরিচলানা শেষে র‌্যাবের এডিসি (অপারেশন) কর্ণেল তোফায়েল মোস্তফা সারোয়ার সংবাদ সম্মেলনে জানান, গতকাল রাতে রাজশাহীর শাহ মখদম থানায় অভিযান চালিয়ে জেএমবির রাজশহী বিভাগীয় আমির জুয়েল আলী ওরফে মাহমুদ সহ ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পরে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করায় শাহজাদপুরে আরও জঙ্গিদের অবস্থান জানা যায়। সেই সূত্র ধরেই শাহজাদপুরে ভোর পাচটায় অভিযান শুরু করা হয়। প্রথমে জঙ্গিরা র‌্যাবকে উদ্দেশ্য করে গুলি বর্ষণ শুরু করে। হতাহত আটকাতে কৌশল পরিবর্তন করে বাড়িটি ঘিরে রেখে তাদের আত্মসমর্পণের আহ্বান জানানো হয়। দীর্ঘ চেষ্টার পরে তারা আত্মসমর্পণ করে। এসময় ঐ বাড়ি থেকে তাদের সাংগঠনিক বই, দুইটি বিদেশি পিস্তল, গান পাউডার,  বোমা তৈরির সরঞ্জাম ও পতাকা উদ্ধার করা হয়। ২৫ দিন আগে শাহজাদপুরে শেরখালির এই বাড়িটি ভাড়া নিয়ে বসবাস শুরু করে। তাবলীগ জামাতের সাথে মিশে তারা নিজেরা সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করছিল।  গতকাল তাদের সাংগঠনিক মিটং ছিল। সেই খবর জানতে পেরেই অভিযান পরিচালনা করা হয়।
এদিকে শাহজাদপুর উপজেলার শেরখালীতে জঙ্গি গোষ্ঠীর অবস্থানের খবর জানতে পেরে উৎসুক জনতার ভীড় জমে যায়। শান্তিপ্রিয় শাহজাদপুরবাসী জঙ্গিদের অবস্থান জানতে পেরে অনেকে আতঙ্কিতও হয়ে জান। স্থানীয়রা জানান, শাহজাদপুরে এর আগে জঙ্গি ছিল না। হঠাৎ করে জঙ্গিদের অবস্থান আমাদের আতঙ্কিত করে তুলেছে। র‌্যাবকে ধন্যবাদ জানিয়ে তারা আরও বলেন,  এরকম ভয়ংকর জঙ্গি গোষ্ঠী আমাদের প্রিয় শাহজাদপুরে ঘাপটি মেরে ছিল আমরা জানতেই পারিনি। বড় ধরনের ক্ষতিসাধনের আগেই র্যাব তাদের আটক করায় শাহজাদপুরবাসী বড় দূর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেল।