মাহমুদ নগরে ২০০ টি পরিবারের তালিকা করা হয়েছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে (কুইক রেসপন্স) কার্ডের জন্য

0
388
তরিক হোসেন বাপ্পি।
ত্রাণের চাল চুরি ঠেকাতে সমগ্র বাংলাদেশ  ৫০ লাখ পারিবারের জন্য তৈরি হচ্ছে কিউআর (কুইক রেসপন্স) কার্ড। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের তত্বাবধানে এই কার্ডের সফটওয়্যার তৈরি করছে আইসিটি বিভাগ।কার্ড তৈরির কাজ প্রায় শেষ। জেলা প্রশাসক, ইউএনও, জনপ্রতিনিধি ও সংশ্লিষ্টদের সহায়তায় আগামী সপ্তাহেই এটি বিতরণ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব (ত্রাণ-১) আবুল খায়ে  ও মোহাম্মদ মারুফ হাসান। তারা জানিয়েছেন, গত ২৮ এপ্রিল থেকে ত্রাণের প্রকৃত সুবিধা  ভোগি শনাক্তের কাজ শুরু হয়েছে। সরকারি আদেশে করোনা ভাইরাসের প্রভাবে সমস্যায় জর্জরিত এমন ৫০ হাজার পরিবারকে কয়েক ধাপে কিউআর (কুইক রেসপন্স) কার্ড দিবে নারায়ণগঞ্জ সিটিকর্পোরেশন। ১৪ ক্যাটাগরিতে প্রধানমন্ত্রী প্রদত্ত এ সহায়তা দেয়া হবে।দরিদ্র-হতদরিদ্র ও অসহায় ৫০ হাজার পরিবারের মাঝে ২৭ টি ওয়ার্ডে ৩৬ জন কাউন্সিলর এর মাধ্যমে সহায়তা প্রদান করবেন নারায়ণগঞ্জ সিটিকর্পোরেশন এর মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। তবে এ বিষয়ে কিছু নিয়ম নীতি বাধ্যতামূলক মানা হবে। যাদের কে এই কার্ড প্রদান করা হবে তাদের হতে হবে ভাসমান মানুষ, বস্তিবাসী, প্রতিবন্ধি, ভিক্ষুক, দিনমজুর, বেকার শ্রমিক, গনপরিবহন শ্রমিক, রেষ্টুরেন্ট শ্রমিক, ফেরীওয়ালা, চা-বিক্রেতা, রিকসা-ভ্যানচালক, স্বামী পরিতক্তা, হিজড়া, ও পথ শিশু। তাদের মাঝে কিউআর কার্ড বিতরণ করে পরে তাদের চাহিদা অনুযায়ী সহায়তা তালিকা প্রদান করা হবে বলে জানা গেছে। এক তথ্যমতে ২০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মহোদয়ের কাছে  ১৩১৭ টি (কুইক রেসপন্স) কার্ড সিটি কর্পোরেশন থেকে হস্তান্তর করেছে। কাউন্সিলরগণ তার ওয়ার্ডের। ৭ টি সমাজের সভাপতির সাথে সমন্বয়ে কার্ড গুলো ভাগ করে দেয় আমাদের মাহমুদনগর পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি জনাব হুমায়ুন কবিরের নেতৃত্বে ২০০ টি  (কুইক রেসপন্স) কার্ডের  পূর্ণাঙ্গতালিকা মাঠ পর্যায়ে তদন্ত সাপেক্ষে  গঠন করা হয়েছে  ও আজ সকালে কাউন্সিলর মহোদয়ের কাছে হস্তান্তর করেন আমাদের এলাকার পঞ্চায়েত কমিটির  সভাপতি জনাব হুমায়ুন কবির সাহেব। এই সয়য় কাউন্সিলর গোলাম নবী মুরাদ বলেন আপাতত আপনার এলাকায় ২০০ টি পরিবারকে সরকারি সহযোগিতায় আওতায়  আনতে পেরেছি ভবিষ্যতে এ সংখ্যাটি আরো বাড়ানো চিন্তা আমার মাথায় আছে যদি আমি কোন বড় ধরনের সরকারি সহযোগিতা পাই ইনশাআল্লাহ আমি আপনার এলাকার এক-তৃতীয়াংশ লোকের পূর্ণাঙ্গতালিকা ঘটন করিবো।এই মর্মে আরো বলিতেছি যে এই দুর্যোগের সময় কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে চাই এখন সময় কাজ কোরার। কে কোন দল এই পৃথক ভাগাভাগি করার সময় নয় এখন যারা বিত্তবান আছেন তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি আপনার চারিপাশে মধ্যবিত্ত ও নিম্নআয়ের পরিবারগুলোর একটু পাশে দাঁড়ান হয়তো সৃষ্টিকর্তা আপনার পাশে দাঁড়াবে  ডান হাতে দান করুন বাম হাত কে বুজতে দিয়েন না  ধন্যবাদ।