ভোলার চরফ্যাশনে সড়ক দূর্ঘটনায় মৃত্যু নিয়ে ধুম্রজাল ; নিরপরাধীদের বিরুদ্ধে মামলার অভিযোগে এলাকাবাসীর ক্ষোভ

0
505
স্টফ রিপোর্টারঃ চরফ্যাশন উপজেলায় সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীর প্রেম পলায়নের সময় সড়ক দূর্ঘটনায় মৃত্যু নিয়ে ধুম্রজালের সৃষ্টি হয়েছে। কেউ বলছে অপহরণ, আর এলাকাবাসী বলছে প্রেম পলায়ন। এ নিয়ে কৌতুহল আর ধুম্রজালের সৃষ্টি হয়েছে এলাকাবাসীর মধ্যে। স্কুল পড়ুয়া ছাত্রী তানজিলা (১৩) এর মৃত্যু সড়ক দূর্ঘটনায় হয়েছে সত্য। তবে রাকিবের পরিবারের দাবী চরফ্যাশন উপজেলাধীন সড়ক দুর্ঘটনায় নয়,দৌলতখান থানাধীন বাংলাবাজারে বরিশাল উন্নত চিকিৎসার পথে সড়ক দূর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে তানজিলার। বিষয়টি চরফ্যাশন থানা প্রশাসন কিংবা কোন মিডিয়ায় এ যাবৎ স্পষ্ট দেখা যায়নি। এদিকে মৃত্যুর ঘটনায় নিহতের পরিবার প্রেমিক রাকিবের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করার কথা থাকলেও আসামী করা হয়েছে রাকিবসহ তার পরিবারের ৫ জনকে। এতে নিরপরাধীদের নামে থানায় মামলা দায়ের করায় এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। তবে এলাকাবাসীর দাবী তদন্তের মাধ্যমে  প্রকৃত দোষীদের খুজে বের করে তাদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করা।
এলাকা ও মামলার বিবরণ সূত্রে জানা যায়, চর মাদ্রাজ ইউনিয়নের চর আফজাল ২নং ওয়ার্ডের আনোয়ার হোসেন মিয়াজীর সপ্তম শ্রেণিতে পড়ুয়া কন্যার সাথে একই গ্রামের আঃ কুদ্দুছের ছেলে রাকিব (২১) প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এ নিয়ে তাদের দু’পরিবারের মধ্যে চাপা ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। ঘটনার দিন তানজিলা পার্শ্ববর্তী মোল্লা বাড়ীতে প্রাইভেট পড়তে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে প্রেমিক রাকিব হাজির হয় তার সামনে। তাদের দু’জনের সম্মতিতে মটর সাইকেল যোগে পালাতে গিয়ে চরফ্যাশন পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর জহির রায়হানের বাসার সামনে ২টা ৪৫ মিনিটে পৌছলে পিছন থেকে স্কুল ছাত্রী তানজিলা ছিটকে রাস্তায় পড়ে যায়। তাদের ডাক চিৎকারে ঘটনাস্থলের বসবাসকৃত সাবেক কাউন্সিলর জহির রায়হান মুমুর্ষ অবস্থায় তানজিলাকে উদ্ধার করে চরফ্যাশন হাসপাতালে নিলে তার উন্নত চিকিৎসার জন্য কর্তব্যরত ডাক্তার বরিশাল শেবাচিমে প্রেরণ করেন। স্কুল ছাত্রীর পরিবার সংবাদ পেয়ে হাসপাতালে পৌছলে তার মা সহ অন্যান্য সদস্যরা তাকে আল মদিনা প্রাইভেট এম্বুলেন্স যোগে বরিশাল রওয়ানা দেয়। পথিমধ্যে ভোলা সদর উপজেলার নিকটবর্তী বাংলা বাজার সংলগ্ন পল্লী বিদুতের অফিসের সামনে সন্ধ্যা ৭টায় পৌছলে এম্বুলেন্সটি একটি মটর সাইকেলসহ আরোহীকে বাচাতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার ডান পাশের একটি রেইনট্রি  ও ছাতিয়ান গাছের সাথে ধাক্কা খায়। এতে তানজিলা সহ তার সাথে থাকা তার মা ঝর্ণা বেগম (৩৫) আহত হয়। এসময় মটর সাইকেলটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তায় পড়ে গিয়ে আরোহী পল্লী বিদ্যুতের ঠিকাদার জাকির গুরুতর আহত হয়। তাদের ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে এসে এম্বুলেন্স খবর দিলে ভোলা জেলা সদর হাসপাতালের দুটি এম্বুলেন্স ঘটনাস্থলে এসে তানজিলা ও মটর সাইকেল আরোহী জাকিরকে  হাসপাতালে নিয়ে যায়।
ঘটনাস্থলের চা দোকানী আনোয়ার ও পাশের দোকানের ইউছুপ, শিপন মীর বলেন, মটর সাইকেল ও এম্বুলেন্স মুখোমুখী হওয়ায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে এম্বুলেন্সটি গাছের সাথে ধাক্কা লাগে। এতে ভিতরে থাকা মুমুর্ষ রোগী তানজিলার অক্সিজেনের ব্যবস্থাপনা সম্পূর্ণ খুলে আলাদা হয়ে সে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। এসময় তার মা তাকে বাচাতে দিক বিদিক ডাক চিৎকার করলে স্থানীয় এক গ্রাম ডাক্তার এসে অক্সিজেন তানজিলাকে পড়িয়ে দেয়। তখনি তার মৃত্যু হয় বলে উপস্থিত সবাই মনে করেন। তারপর অন্য একটি এম্বুলেন্স দিয়ে তাকে ভোলা সদর হাসপাতালে পাঠালে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তিনি আরো জানান, মটর সাইকেল আরোহী একজন পল্লী বিদ্যুৎ কর্মী, তাকেও মুমুর্ষ অবস্থায় ভোলা সদর হাসপাতালে অন্য একটি এম্বুলেন্সযোগে পাঠানো হয়। এসময় সংবাদ পেয়ে দৌলতখান থানাধীন বাংলাবাজার পুলিশ ফারি ইনচার্জ এস.আই জিন্নাত ঘটনাস্থলে গিয়ে এম্বুলেন্স ও পরিত্যক্ত মটর সাইকেল উদ্ধার করে ফারি হেফাজতে রাখে। ফারি ইনচার্জ এর সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে এম্বুলেন্সের ড্রাইভার এসময় পালিয়ে গেলেও এম্বুলেন্সটি ও মটর সাইকেল পুলিশ হেফাজতে আছে।
তানজিলার মৃত্যুর ঘটনায় তার পিতা আনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে রাকিব সহ তার পরিবারের ৫ জনকে আসামী করে চরফ্যাশন থানায় মামলা দায়ের করে। যার মামলা নং- ০৫,  তারিখঃ ১২/০৭/২০২০ইং।
চরফ্যাশন থানার অফিসার ইনচার্জ সামছুল আরেফিন জানান, স্কুল ছাত্রীর মৃত্যুর ঘটনায় মামলা হয়েছে। আসামী গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ঘটনার মুল রহস্য উদঘাটন করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here