পিপিই না থাকায় মাতৃ ও শিশু হাসপাতালে ডাক্তার অনুপস্থিতি শাহজাদপুরে শত শত শিশুরোগীর চিকিৎসা বন্ধ, ফোনে দিচ্ছেন প্রেসক্রিপসন

0
44
জহুরুল ইসলাম, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার বাগদিপাড়া সংলগ্ন বেসকারি শিশু হাসপাতাল ও মাতৃসদনের চিকিৎসকরা করোনা আতংকে অফিস করছেন না। ফলে এ হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা শত শত শিশু রোগী চিকিৎসা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে। ফলে অভিভাবকরা তাদের শিশু রোগী নিয়ে চরম বিপাকে পড়েছে। মঙ্গলবার সকালে এ হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, সাধারণ সর্দি,কাশি,নিউমোনিয়া ও ডায়েরিয়ায় আক্রান্ত শত শত রোগী চিকিৎসা নিতে ভিড় জমিয়েছে। কিন্তু হাসপাতালে চিকিৎসকরা নেই। অভিভাবকরা ভিড় করে ঘন্টার পর ঘন্টা ধরে ডাক্তারের অপেক্ষায় বসে আছে। ডাক্তর আসছে না। শিশুরোগী নিয়ে অনেককেই কান্নাকাটি করতে দেখা গেছে। দুপুর পর্যন্ত তারা ডাক্তারের অপেক্ষায় বসে থেকে বিনা চিকিৎসায় বাড়ি ফিরেছে। তবে খোজ নিয়ে জানা গেছে এ হাসপাতালের চিকিৎসকরা করোনার অজুহাতে হাসপাতালে না এলেও বিশেষ কৌশলে বাসায় প্রাইভেট প্রাক্টিস অব্যহত রেখেছে। এ হাসপাতালের এক কর্মচারির সাথে কথা বলে তার প্রমাণও পাওয়া গেল। নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই কর্মচারি জানান, ডাক্তারদের নাম ও মোবাইল নম্বর সংবলিত একটি নোটিশ ঝুলিয়ে দেওয়া আছে। পছন্দের ডাক্তারকে তার মোবাইল ফোনে কল করে রোগীর বর্ণনা দেওয়ার পর করোনা নয় এমন নিশ্চিত হলে হয় ওই রোগীকে বাসায় পাঠানো হচ্ছে। অথবা তার পরামর্শ অনুযায়ী প্রেসক্রিপশন তৈরী করে দেওয়া হচ্ছে। ডাক্তারের পরামর্শ ফি যথারীতি রেখে রোগী বিদায় করা হচ্ছে।
এ বিষয়ে এ হাসপাতালের শিশু চিকিৎসক ডাঃ মোস্তফা সারোয়ারের সাথে তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন,আমি একটু অসুস্থ্য তাই হাসপাতালে যাচ্ছিনা। তবে ফোনে রোগীদের পরামর্শ দিচ্ছি।
এবিষয়ে শাহজাদপুর শিশু হাসপাতাল ও মাতৃসদনের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোঃ হাফিজুর রহমান রেজা বলেন, করোনা আতঙ্কে ডাক্তারা আতঙ্কিত। তাই তারা হাসপাতালে আসছেন না। এ ছাড়া আমাদের রোগ প্রটেকশন পোশাক ও সরঞ্জাম নেই। তাই চিকিৎসা দেওয়াও সম্ভব হচ্ছে না। সরকার থেকে আমাদের প্রোটেকশন পোশাক ও সরঞ্জাম সরবরাহ করা হলে আমরা অবশ্যই চিকিৎসা দেব

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here