নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ কর্তৃক ”জিনের বাদশা” নামক তিন প্রতারককে গ্রেফতার ও ২০ ভরি স্বর্ণ উদ্ধার ।

0
314

প্রেস রিলিজ : গত ইং ১৯/০৬/১৯ তারিখ হইতে ২৮/০৬/১৯ইং তারিখ পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে মোবাইল ফোনে কথাবার্তা বলে জিনের বাদশা পরিচয় দিয়া ভিকটিম মনোয়ারা বেগম এর নিকট হইতে বিকাশের মাধ্যমে নগদ ৩,৮০,০০০/- (তিন লক্ষ আশি হাজার) টাকা এবং ২০(বিশ) ভরি স্বর্নের গহনা অজ্ঞাত পরিচয়ে জিনের বাদশা নিজেই হাতিয়ে নিয়া যায়। ভিকটিম মনোয়ার বেগম এর সহিত জিনের বাদশা ধর্মীয় উপদেশাবলী কথাবার্তার মাধ্যমে উক্ত টাকা ও স্বর্ণালংকার প্রতারনামূলকভাবে হাতিয়ে নিয়া আত্মসাৎ করে। এই ঘটনায় ভিকটিম মনোয়ারা বেগমের ছেলে ডাঃ মাহমুদুল হাসান বাদী হইয়া এজাহার দায়ের করিলে ফতুল্লা মডেল থানার মামলা নং-৩০, তাং-১৫/১০/১৯খ্রিঃ, ধারা-৪০৬/৪২০/১০৯ দঃ বিঃ রুজু হয়। ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার, নারায়ণগঞ্জ জনাব মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম মহোদয়ের ব্যক্তিগত তদারকি ও নির্দেশনায় মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই/শরিফুল ইসলাম সঙ্গীয় এসআই/মোবারক হোসেন এবং জেলা গোয়েন্দা শাখা, নারায়ণগঞ্জের এসআই/মোহাম্মদ মিজানুর রহমান তাহার টিমসহ যৌথ অভিযান পরিচালনা করে ইং ২৩/১১/১৯ তারিখ ০০.২৫ ঘটিকার সময় ঘটনার সাথে জড়িত আসামী ১। মুন্নাফ(৩৬), পিতা-হযরত আলী সরদার, সাং-সাহেবগঞ্জ, থানা গোবিন্দগঞ্জ, জেলা-গাইবান্ধাকে তাহার নিজ বাড়ী হইতে গ্রেফতার করে এবং তাহার দখল হইতে ঘটনার সময় ব্যবহৃত মোবাইল ফোন উদ্ধার করে।  উক্ত আসামীর তথ্যমতে তাহাকে নিয়া অভিযান পরিচালনা করিয়া জিনের বাদশার মূল হোতা জিনের বাদশা আসামী ২। তৌহিদ(২৩), পিতা-জহিরুল ইসলাম, সাং-রামনাথপুর, থানা-গোবিন্দগঞ্জ, জেলা-গাইবান্ধাকে একই তারিখ সকাল ০৭.৪০ ঘটিকার সময় বন্দর থানা মদনপুর এলাকা হইতে এবং তাহার সহযোগীকে গ্রেফতার করে।  আসামী তৌহিদ (২৩) এর তথ্যমতে তাহাকে নিয়া অভিযান পরিচালনা করিয়া ইং ২৩/১১/১৯ তারিখ ১৭.২০ ঘটিকার সময় আসামী ৩। শিবু চন্দ্র মহত্ত(৩৫), পিতা-ধীরন্দ্র নাথ মহত্ত, সাং-বোয়ালিয়া প্রধানপাড়, থানা গোবিন্দগঞ্জ, জেলা-গাইবান্ধাকে গোবিন্দগঞ্জ বাজার হইতে গ্রেফতার করে এবং তাহার দখল হইতে আত্মসাৎকৃত ২০(বিশ) ভরি গলিত স্বর্ণ উদ্ধার করে।  গ্রেফতারকৃত আসামীগন পেশাদার জিনের বাদশা চক্রের সক্রিয় সদস্য। তাহারা একাধিক রেজিস্ট্রেশন বিহীন ভুয়া সীম ব্যবহার করে জিনের বাদশা পরিচয় দিয়া দীর্ঘদিন যাবৎ দেশের বিভিন্ন এলাকার লোকজনকে প্রতারনামূলক ধর্মীয় কথাবার্তা বলার মাধ্যমে তাহাদের ভক্ত বানাইয়া তাহাদের টাকা পয়সা স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here