ঠাকুরগাঁওয়ে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী শ্রাবণী (১৫) হত্যার বিচারের রায়ের দাবিতে মানববন্ধন

0
88
রেজাউল ইসলাম মাসুদ,   ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধিঃ
ঠাকুরগাঁওয়ে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী শ্রাবণী  (১৫) হত্যার বিচারের  রায় দাবিতে মানববন্ধন করা হয়েছে। শনিবার সকালে ঠাকুরগাঁও চৌরাস্থায় ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন করেন তার শিক্ষাথীরা।
এসময় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন প্রবীণ শিক্ষা বিদ মনতোণ কুমার দে, হিন্দু ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রবীর কুমার গুপ্তা (বুয়া)আরো ছাত্র ইউনিয়নের  সভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিক,স্কুলের প্রধান শিক্ষাক দীপেন্দ্রনাথ ঝাঁ,  মানববন্ধন শেষে ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি তানভীরুল ইসলাম (তানভীর) ও গোলাম মর্তুজা, শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।শিক্ষার্থীরা শুনে মানববন্ধন সমাপ্তি ঘোষণা করে স্কুলে ফিরে যান।
ঠাকুরগাঁওয়ে স্কুল ছাত্রী শ্রাবনী রানী (১৫) এর হত্যাকারী সৎ মামা সোহাগ বর্মণ (২২) কে
বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৪ টার দিকে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে শহরের বরুনাগাঁও আশ্রমপাড়া এলাকার মাখনের আম বাগান থেকে তাকে আটক করে পুলিশ। সোহাগ জগন্নাথপুর ইউনিয়নের চব্বিশ টিউবওয়েল এলাকার ধীরেণ বর্মনের ছেলে ।
এর আগে গত বুধবার সন্ধায় সদর উপজেলার আকচা ইউনিয়নের পল্টন এলাকার নিজ বাড়ি থেকে শ্রাবনীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। শ্রাবনী ওই এলাকার ভবেশ চন্দ্র বর্মনের মেয়ে।
পুলিশ সুত্রে জানা যায়, ঠাকুরগাঁও সি এম আইয়ুব বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে দশম শ্রেনীর ছাত্রী শ্রাবনী রানীর সম্পর্কে সৎ মামা সোহাগ বর্মণ। সে তার মায়ের সাথে খাগড়াছড়ি জেলার মাহালছড়ি উপজেলার মাইশছড়ি গুচ্ছগ্রামে থাকতো। সে গত চার মাস আগে খাগড়াছড়ি থেকে ঠাকুরগাঁওয়ে চলে আসে। সম্পর্কের সুবাদে সোহাগ প্রায়ই শ্রাবণীদের বাড়িতে যাতায়াত করত। এ সময়ে সোহাগ তার সৎ ভাগনিকে প্রেমের প্রস্তাব দিলে পরিবারে তা জানাজানি হয়ে যায়। এর পরে শ্রাবনী তার প্রস্তাব প্রত্যাক্ষাণ করলে তা মেনে নিতে পারেনি সোহাগ। মনের ক্ষোভ থেকে গত বুধবার সন্ধ্যায় সোহাগ আরও কয়েকজন শ্রাবণীদের বাড়ি যায়। এ সময় বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে তারা শ্রাবণীকে গলাকেটে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here