টাঙ্গাইলে এস এস সি পরিক্ষার্থীকে কুপিয়ে আহত

0
30
মোঃ আমজাদ হোসেন রতন, টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধিঃ সকল বাবা মা চায় সন্তান পড়াশোনা করে বড় হবে, কিন্তু সেই পড়াশোনার পিছনে যদি বাধাঁ হয়ে দাড়াঁয় সমাজের কিছু নরপশু! তখনি সন্তানকে নিয়ে স্বপ্ন দেখা বন্ধ হয়ে যায়, সন্তান এস এস সি পরিক্ষা দিবে এই আনন্দে মা বসে আছে পথ চেয়ে। হঠাৎ করে কে বা কারা সংবাদ পৌঁছায় মা মা তোমার সন্তানকে কুপিয়ে রাস্তার ধারে ফেলে গেছে, মায়ের মাথায় তখন আকাশ ভেঙে পড়ে, ছোটা ছুটি করে বলতে থাকে কে কোথায় আছো দ্রূত চলে আসো আমার বাবাকে কুপিয়ে রাস্তায় ফেলে গেছে।
হাঁ এ ভাবেই বলছিলেন টাঙ্গাইল সদর উপজেলার পৌরসভা এলাকার কাজীপুর চর পাড়া গ্রামের মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসা সিয়ামের মা, সে দিন ছিল ৩০/০১/২০২০ বৃহস্পতিবার পুটিয়াজানি মেজর জেনারেল মাহমুদুল হাসান উচ্চ বিদ্যালয়ের ২০২০, সনের এস এস সি পরিক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান।
অনুষ্ঠান শেষে সিয়াম বন্ধুদের নিয়ে টাঙ্গাইল ডিসি লেকে ছবি তুলতে যায়, পূর্ব শত্রুতার জেরে ওৎ পেতে থাকা কিছু দুষ্কৃতি সিয়ামের সাথে থাকা বান্ধবীদের উৎতক্ত করতে থাকে, সিয়াম বাধাঁ দিলে সিয়ামকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়, সিয়াম প্রতিবাদ করে চলে আসার জন্য অটোরিকশায় উঠে, পথি মধ্যে বিশ্বজিৎ (১৭) গোপাল (১৬) তায়েবুর রহমান (১৭) জিসান (১৬) আবির (১৭) অজ্ঞাত আরো কয়েকজন মিলে সিয়াম কে অটোরিকশা করে তুলে নিয়ে যায়।
বিশ্বাস বেতকা দাস পাড়া মন্দিরের পিছনে গাছের বাগানের ভিতরে নিয়ে এলোপাতাড়ি ভাবে রড, হকেষ্টিক,ও রাম দা দিয়ে   কোপাতে থাকে, এক পর্যায় মৃত্যৃ নিশ্চিত করে চলে যায়, পরে সাথে থাকা আরেক বন্ধু আশে পাশের লোকজনের সহযোগিতায় টাঙ্গাইলের ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করে। রোগির অবস্থা অবনতি হলে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে রেফার্ড করে, মৃত্যুর সাথে  পাঞ্জা লড়ছে সিয়াম।
সিয়ামের বড় ভাই জানান, আমার ভাই সহজ সরল কখনো কারো সাথে ঝগড়া পযর্ন্ত কোন দিন করে নাই, ছাত্র হিসাবে বেশ ভালো, কিন্তু কেন এতো বড় ঘঠনা ঘঠে গেল বুঝতে পারছি না। যারা হামলা করেছে তারা সবাই এস এস সি পরিক্ষা দিচ্ছে, অথচ আমার ভাই মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।
সরজমিনে গিয়ে যানা যায়, আসামীরা সবাই টাঙ্গাইল বিন্দু বাসিনী হাই স্কুলের  ছাত্র, কথা হয় মেজর জেনারেল মাহমুদুল হাসান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে। তিনি বলেন আমার স্কুলের মেধাবি একজন ছাত্রকে এভাবে কুপিয়ে জখম করেছে এটা দুঃখ জনক। আমি এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।
এদিকে টাঙ্গাইল সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। আহত সিয়ামের দাদী শাহানা হক, অভিযোগ টি আমলে নিয়ে তদন্ত করতে নির্দেশ দিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here