চরফ্যাসনে অন্যের জমি মালিকানা দাবী করে ঘর নির্মাণ

0
241
স্টাফ রিপোর্টারঃচরফ্যাসন উপজেলা দক্ষিণ আইচা থানা ৯ নং চরমানিকা ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ড চরকচ্ছপিয়া উত্তর মাথায় ৯ বছরের ভোগদখলীয় জমিতে গ্রাম্য আদালতের নিষেধাজ্ঞা আমান্য করে ঘর নির্মাণ করার অভিযোগ উঠেছে রশিদ হাং (৬০)এর বিরুদ্ধে। বুধবার (১৭ মার্চ ) সকালে জবর দখল করে জমিতে ঘর নির্মাণ শুরু করেন রশিদ হাং গংরা। অভিযুক্ত রশিদ হাং গংরা দক্ষিণ আইচা থানা ৫ নং ওয়ার্ড চরমানিকা ইউনিয়নের পঞ্চম আলী হাং এর ছেলে। তিনি ৫ নংওয়ার্ড বসবাস রত রশিদ হাং বাড়ির রশিদ।
অভিযোগে জানা গেছে,একই ইউনিয়ন এর ৫ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মো.নুরুল আমিন (৫৫),তিনি ৯ বছর আগে মো.বাবুল এর কাছ থেকে ২২ শতাংশ জমি ক্রয় করে দীর্ঘ ৯ বছর সৃজন করে আসছেন। যার দাগ নং ১৯ বন্দবস্ত খতিয়ান নং ৫২২, অপর ৫২৬, জেএল নং ১০৩।কিন্তু হটাৎ করে রশিদ হাং গংরা তার জমিতে বর্ষা মৌসুমে জোরপূর্বক ধান কাটে এবং তার পুকুর থেকে গত ১৮ মার্চ দুপুর ২.০০ টার সময় মাছ ধরে নিয়ে জান। এ ব্যাপারে নুরুল বেপারি অভিযোগে আরও জানান, আমি বিভিন্ন জায়গায় জানানের পরেও রশিদ হাং কোনো প্রতিকার না করায় তাই আমি বাধ্য হয়ে ভোলা দক্ষিণ আইচা থানা সহ গ্রাম্য আদালতে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দখিল করে অভিযোগ চলমান আছে। কিন্ত পুলিশ ও গ্রাম্য আদালত তাদেরকে বারবার নোটিশ ও নিষেধাজ্ঞা দিলেও তারা আমার জমিতে গত (১৮ মার্চ ) সকাল বেলা আমি বাড়িতে না থাকায় জোরপূর্বক ঘর তৈরি করেন রশিদ হাং গংরা। গ্রাম্য আদালত নির্দেশ দিলেও তারা অমান্য করে জমি জবর দখলের চেষ্টা করছে। বাধা দিলে তারা আমার সপরিবারকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। তারা টাকার জোরে সবাইকে ম্যানেজ করে আমার জমি দখল করছে। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।
জমির পাশের প্রতিবেশী ফারুক বলেন, এই জমিটি দীর্ঘ কয়েক বছর যাবৎ মো.নুরুল আমিন ভোগদখল করে আসছেন। কিন্তু (গত ১৮ মার্চ) সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখি ওই জমিটিতে মাটি কেটে ঘর নির্মাণ করা।
অভিযুক্ত রশিদ হাং এর সাথে কথা বলতে গেলে তাকে পাওয়া যায় নাই, তার ফোনে একাদিক বার ফোন দিলেও রিসিভ করে নাই, তাই আমরা তার বাড়িতে গেলে রশিদের ছেলে মো. কাজলকে পেয়ে তাকে জিজ্ঞেস করলে সে বলে আমরা বাবুলের কাছ থেকে ২০ শতাংশ জমি ক্রয় করে আমাদের জায়গায় আমরা ঘর নির্মাণ করেছি তাতে সমস্যা কি । এর বাইরে তিনি কোনো কথা বলে নাই।
দক্ষিণ আইচা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুন অর রশিদ বলেন, অভিযোগ পেলে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে
Attachments area

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here