কুড়িগ্রাম জেলা ছাত্র কল্যাণ পরিষদের নতুন কমিটি গঠন

0
526

গঠিত হয়ছে কুড়িগ্রাম জেলা ছাত্র কল্যাণ পরিষদ কবি নজরুল সরকারি কলেজ শাখার নতুন কমিটি । নতুন কমিটির সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন ইংরেজি বিভাগের (২০১৫-১৬) সেশনের শিক্ষার্থী “রাসেল মাহমুদ” এবং সাধারণ সম্পাদক  ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের (২০১৭-১৮) সেশনের শিক্ষার্থী রুকুনুজ্জামান ।

মঙ্গলবার ( ১৭মার্চ ) এই কমিটি ঘোষণা করা হয়।

কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলো-

সহ-সভাপতি আল মামুন মিন্টু,আব্দুল আজিজ,রুহুল আমিন,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আল আমিন,সাংগঠনিক সম্পাদক রুবেল সরকার,দপ্তর সম্পাদক মাসুদ রানা,প্রচার সম্পাদক মোস্তফা কামাল,অর্থ বিষয়ক সম্পাদক লিটন মিয়া,আইন বিষয়ক সম্পাদক মেহেদি হাসান,ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আখিনুর রহমান রাসেল,শিক্ষা ও পাঠ্যক্রম বিষয়ক সম্পাদক নাজমুল ইসলাম নাহিদ,আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক আল জামি,ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক রবিউল ইসলাম রেজা,গণযোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক মাহমুদুল হাসান মাউম,তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক রবিউল ইসলাম,সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক হাসিন আবরার সৌরভ,ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক ওমর ফারুক,ছাত্রী বিষয়ক সম্পাদক মনিষা আক্তার,উপ-ছাত্রী বিষয়ক সম্পাদক নারগিস পারভীন,কর্মসূচি ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক শাহিন আলম জয়,মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক আনারুল ইসলাম,সদস্য আসাদ,জাহাঙ্গীর আলম,মুরাদ হোসেন,মেহেজাবিন,রাশেদুল ইসলাম,আকাশ মাহমুদ।

নির্বাচিত সভাপতি রাসেল মাহমুদ বলেন;

সংগ্রামী সহযোদ্ধারা,আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ্ ।গত ১৭ মার্চ কুড়িগ্রাম জেলা ছাত্রকল্যাণ পরিষদ, উৎসাহ-উদ্দীপণার মধ্যদিয়ে   আমাকে সভাপতি পদে নির্বাচিত করায় কুড়িগ্রাম জেলার সকলকে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

বিশেষ করে ধন্যবাদ জানাচ্ছি আহব্বায়ক কমিটির সবাইকে, ও   আমার প্রাণ প্রিয় বড়  ভাই বন্ধুদের, যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে আজকে আমরা এক হতে পেরেছি ও আরো ধন্যবাদ জানাই বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক রুকুনুজ্জামান রোহানকে এবং ধন্যবাদ জানাই সবাইকে যারা আমাদের সংগঠনের সাথে জড়িত,,আমরা   যারাই এটার সাথে জড়িত তাদের সবাইকে নিজের দায়িত্ব পালনের জন্য অনুরোধ করে এবং নিজের জন্য দোয়া চেয়ে   শেষ করছি অবশেষে নিজের ইচ্ছাপোষণ থেকে বলছি কমিটিকে সু-সংগঠিত এবং শক্তিশালী করবো। ইনশাআল্লাহ

নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক রুকুনুজ্জামান অনূভুতি প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন;  দায়িত্ব খুব সহজ একটা জিনিস না। এর পিছনে মাহাত্ম্য  থাকে অনেক বেশি জরুরি। এ দায়িত্বে আমি ব্যক্তিগতভাবে সন্তুষ্ট। সব সময় চিন্তা ছিলো এলাকার মানুষদের নিয়ে কিছু  করা, এত জনমানুষের মাঝে যারা আমরা এখানে পড়াশুনা করতেছি সবাই কোনো রকম সংশয় ছাড়া যেনো নির্বিঘ্নে পড়াশুনা করতে পারি তার জন্য সচেষ্ট থাকবো। এ কমিটির মাধ্যমে নতুন এক যাত্রা শুরু হোক আমাদের সাধারণ শিক্ষার্থীদের যাতে সামনে নিজ নিজ অবস্থান থেকে পরবর্তীতে যারা আসবে তাদের পাশে থাকবো ইনশাআল্লাহ। যত রকম সামাজিক কর্মকাণ্ড (যেমন নবীন বরণ, বার্ষিক ট্যুর, ক্রিয়া প্রতিযোগিতা, রমজানে সবাই মিলে ইফতারের ব্যবস্থা ইত্যাদি) সবার আলোচনা সাপেক্ষে করার প্রত্যয় ব্যক্ত করছি। পরিশেষে বলবো এ সংগঠন আমাদের সবার।সবাই যাতে উপকৃত হতে পারি তাই হবে এর মূল লক্ষ্য।

এছাড়াও উপদেষ্টা হিসেবে রয়েছেন ফেরদৌস আহমেদ,বিপুল মিয়া ও আনোয়ারুল ইসলাম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here