অভাবের তারনায় নিজ নবজাতক সন্তান কে খালপাড়ে ফেলে দিলেন মা,বাবা।

0
50
বন্দরে খালপাড় থেকে এক নবজাতক শিশুকে উদ্ধার করেছে পথচারী এক যুবক। ২০ নভেম্বর শুক্রবার বেলা ১২টায় বন্দর উপজেলার ফরাজিকান্দা খালপাড় এলাকা থেকে ওই নবজাতককে উদ্ধার করে পথচারী যুবক বন্দর থানায় হস্তান্তর করে। নবজাতক উদ্ধারের ঘটনায় ফরাজিকান্দা এলাকাসহ এর আশেপাশের এলাকায় ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়। পরে বন্দর
থানার অফিসার ইনচার্জ ফখরুদ্দীন ভ্থইয়া র্নিদেশে বন্দর থানা পুলিশ ওই নবজাতককে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদানের জন্য বন্দর ছাঁয়া নূর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্ররত চিকিৎসক নবজাতক মিশুটিকে ঢাকা হাসপাতালে রেফার্ড করলে সেখানে চিকিৎসরত অবস্থায় সন্ধ্যায়  ওই নবজাতক শিশুটি মৃত্যু বরণ করে। নবজাতকের পিতার নাম লাল মিয়া ও তার মায়ের নাম রিক্তা বেগম বলে জানা গেছে।
বন্দর উপজেলার ফরাজিকান্দা এলাকার আমানউল্ল্যাহ মিযার বাড়ী ভাড়াটিয়া বলে জানা গেছে। নবজাতক উদ্ধারকারী বন্দরের ফরাজীকান্দা এলাকার যুবক সজিব জানান, তিনি শুক্রবার দুপুরে বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় ফরাজীকান্দা খালের পাড় থেকে শিশুর কান্নারআওয়াজ শুনতে পান। সামনে গিয়ে কাপড় মোড়ানো অবস্থায় নবজাতককে দেখতে পান ।
এরপর নবজাতক শিশুটিকে উদ্ধার করে বন্দর থানায় নিয়ে আসেন। এ ব্যাপারে বন্দর থানার ওসি ফখরুদ্দীন ভুইয়া জানান, নবজাতককে উদ্ধারের পর স্থানীয় একটি ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়। পরে ফরাজীকান্দায় অভিযান চালিয়ে তারবাবা মাকে খুঁজে করে পুলিশ। এরপর নবজাতককে বাবা মার কাছে দেয়া হয়। এর মধ্যে নবজাতকটি খুব অসুস্থ হয়ে পড়লে ঢাকা মেডিকেল কলেজ
হাসপাতালে নেয়া হয়।শুক্রবার সন্ধ্যায় সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় নবজাতক শিশুটি মারা যায়।এ ব্যাপারে নবজাতকের বাবা লাল মিয়া জানান, তিনি একটি আটার মিলে স্বল্প বেতনেকাজ করেন। তার স্ত্রী একজন গার্মেন্টস শ্রমিক। অভাবের সংসারে বাচ্চার ভরণপোষণসম্ভব নয় ভেবে তারা নবজাতককে খালের পাড় ফেলে রেখে যান।